বরিশালে বিদেশ পাঠানোর নামে প্রতারনার শিকার কয়েকটি পরিবার

0
33

বরিশালে বিদেশ পাঠানোর নামে প্রতারনার শিকার কয়েকটি পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল:- আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর, ধর্মীয় লেবাস ধারন করে, প্রত্যন্ত পল্লী এলাকার মানুষের ধর্মীয় অনুভূতি, দুর্বলতা কাজে লাগাচ্ছেন। কিন্তু সে পেশায় একজন দুর্দান্ত প্রতারক দালাল চক্রের সক্রিয় সদস্য। ঢাকার পল্টন এলাকার বিভিন্ন ট্রাভেলস এজেন্সির সহযোগিতায় অবাধে চালিয়ে যাচ্ছে তার প্রতারনার রমরমা ব্যবসা। ভিটে মাটি সহায় সম্বল হারিয়ে নিঃস্ব হচ্ছে অর্ধশতাধিক পরিবার। উন্নত দেশের বিলাস বহুল জীবনের স্বপ্ন দেখিয়ে, অনেক পরিবারগুলোকে সর্বশান্ত করে রাস্তার ভিক্ষারীর মত অবস্থানে নামিয়ে এনেছে এই আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর। ভুক্তভোগী সে পরিবারগুলি, আজ মানবেতর জীবনযাপন করছে। তেমনি এক ভুক্তভোগী নিঃস্ব হওয়া টগবগে তরুন সাঈদুল বিশ্বাস। বরিশাল জেলার উজিরপুর থানার পূর্ব রাজাপুর গ্রামের বাবুল বিশ্বাস ও সাহিদা বেগমের ছেলে সাঈদুল বিশ্বাস। বাবা, মায়ের ইচ্ছা ছিল ছেলেকে বিদেশ পাঠাবে, যাতে একটু সচ্ছল ভাবে জীবন যাপন করা যায়, এই আশায়। বাবা, মা খবর পায় বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া থানার জরমপুটি গ্রামের আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর গ্যারান্টি সহকারে সাঈদুল বিশ্বাসকে বিদেশ পাঠাবে। আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর দায়িত্ব বুঝে নেয়। এরপর সাঈদুল ইসলামের পাসপোর্ট প্রনয়নের মধ্যদিয়ে শুরু হয় বিদেশ পাঠানোর প্রথম ধাপ। পাসপোর্ট নং বিপি ০৭৪১৯৫৭। আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর এলাকায় জানান সৌদি আরবের রিয়াদ, আল-মাজমা, হারমাসহ বিভিন্ন স্থানে তার একাধিক মুদি দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আগৈলঝাড়া, উজিরপুর, বাবুগঞ্জসহ আশেপাশের এলাকায় আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুরের একাধিক দালালচক্র ও বিদেশে আদমপাচারকারী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে প্রত্যন্ত পল্লী এলাকার সহজ সরল মানুষকে ভুল বুঝিয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন বিদেশ পাঠানোর নামে প্রতারনার রমরমা ব্যবসা। গত ০৬/০৬/২০১৭ ইং তারিখে সৌদি আরবের রিয়াদে বাংলাদেশী টাকায় ৫০,০০০/= (পঞ্চাশ হাজার টাকা) বেতন, থাকা, খাওয়া ও চিকিৎসা ফ্রি শর্তে বরিশাল জেলার উজিরপুর থানার পূর্ব রাজাপুর গ্রামের টগবগে তরুন সাঈদুল বিশ্বাসকে বিদেশ পাঠানোর জন্য আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর সাঈদুল বিশ্বাসের বাবা বাবুল বিশ্বাস ও মা সাহিদা বেগমের কাছ থেকে নগদ ৬,৮০,০০০/= (ছয় লক্ষ আশি হাজার টাকা) নগদ বুঝে নেন। কিন্তু বিদেশ নেয়ার পর সাঈদুল বিশ্বাসকে রাস্তায় ছেড়ে দেন আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর, মারধর করে চালান অমানুষিক নির্যাতন। বাবা বাবুল বিশ্বাস ও মা সাহিদা বেগম ছেলে সাঈদুল ইসলামকে বাচাতে বাংলাদেশ থেকে প্লেনের টিকেট ও অনান্য খরচ বাবদ ৬০,০০০/= (ষাট হাজার টাকা) পাঠিয়ে ফেরৎ আনেন। ফিরে আসার দীর্ঘদিন পার হয়ে গেলেও শর্তের টাকা আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুরের কাছে ফেরৎ চাইলে এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের দিয়ে সাঈদুল বিশ্বাসকে বিভিন্ন হুমকি ও মামলার ভয় দেখিয়ে যাচ্ছেন। ঢাকার পল্টন এলাকার বিভিন্ন ট্রাভেলস এজেন্সির সহযোগিতায় অবাধে চালিয়ে যাওয়া প্রতারনার রমরমা ব্যবসা মূল হোতা, ধর্মীয় লেবাস ধারন করে, প্রত্যন্ত পল্লী এলাকার মানুষের ধর্মীয় অনুভূতি, দুর্বলতা কাজে লাগানো পেশাদার দুর্দান্ত প্রতারক দালাল চক্রের সক্রিয় সদস্য আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হুজুর মুঠোফোনে জানান, প্রতারিত ব্যক্তিদের পাওনা টাকা আমি ধীরে ধীরে পারলে পরে দিয়ে দেবার চেষ্টা করবো। ভিটে মাটি সহায় সম্বল হারিয়ে নিঃস্ব হওয়া অর্ধশতাধিক পরিবার সর্বশান্ত করে রাস্তার ভিক্ষারীর মত অবস্থান করা মানুষ জেলা প্রশাসনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ চাচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here