Youtube google+ twitter facebook SS24BD Logo

তাড়াশে জলাশয় সংস্কারের নামে অনিয়মের অভিযোগ: অর্ধকোটি টাকা লোপাট

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ১৪:৫৪, জুলাই ২, ২০১৯

সেলিম রেজা , সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য নেয়া আটটি প্রকল্পে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে । সংস্কারের নামে অর্ধেক কাজ করে বিল তুলে নিয়েছেন কথিত ঠিকাদাররা । অভিযোগ রয়েছে মৎস্য অফিসের কতিপয় কর্মকর্তা-কর্মচারির যোগসাজসে এমন অনিয়ম চলে আসছে বছরের পর বছর । জেলা মৎস্য কর্মকর্তার দাবি অভিযোগ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে । তাড়াশ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার অফিস সূত্রে জানা যায়, সরকার মৎস্য অধিদপ্তরের আওতায় ২০১৮-২০১৯ আর্থিক সালে জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষে তাড়াশ উপজেলায় পুকুর পূণ:খননের জন্য আটটি প্রকল্প হাতে নেয় । যার প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয় এক কোটি ৪০ লাখ টাকা । প্রকল্প গুলো হচ্ছে, হাটখোলা পুকুর,দেওকুড়া পুকুর, তেতুলিয়া পুকুর, রাজগাড়ি পুকুর, পাকুরিয়া পুকুর, উত্তর জোড় পুকুর,বড় ধাইগাছি পুকুর ও কাড়ালিয়া পুকুর পূণ:খনন । প্রকল্পের শর্তানুযায়ি এসব পুকুর সংস্কার করবেন সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের মৎস্যজীবি প্রকল্পের সুফলভোগীরা । এ লক্ষে সুফলভোগীদের নিয়ে একটি এলসিএস কমিটি গঠন করা হয় । কিন্তু বাস্তবে তা হয়েছে কাগজে কলমে । মৎস্য অফিসের যোগসাজসে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করছে কথিত ঠিকাদাররা । ওই সব ঠিকাদারদের দাবি তারা মৎস্যভবনে টাকা দিয়ে তদবির করে প্রকল্প গুলো বের করে এনেছেন ।আর এমনটাই চলছে বছরের পর বছর । অথচ এসব প্রকল্পে ঠিকাদারদের কাজ করার কোন নিয়মই নেই । সে কারণে অলিখিতভাবে এসব ঠিকাদাররা অধিক মুনাফার লোভে দায়সারা ভাবে কাজ করেছে । সঠিক তদারকি না থাকায় সংস্কারের নামে চলছে হরিলুট, লোপাট হয়েছে লাখ লাখ টাকা । ফলশ্রুতিতে সরকারের আসল উদ্দেশ্যই ভেস্তে যেতে বসেছে । প্রকল্পের কাজ ফেব্রুয়ারিতে শুরু করে মার্চে শেষ হবার কথা থাকলেও এপ্রিল পর্যন্ত বৃদ্ধি করে তা সমাপ্ত করা হয়েছে । প্রকল্পগুলো সঠিকভাবে বাস্তবায়িত হলে অতিরিক্ত কুড়ি মেট্রিক টন মাছ উৎপাদন করা সম্ভব হতো । সরেজমিনে উপজেলার দেশীগ্রাম ইউনিয়নের দেওকুড়া পুকুর পূণ:খনন প্রকল্পে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সংস্কারের অধিকাংশ কাজ সমাপ্ত করা হয়েছে । ঠিকাদার ও মৎস্য অফিসের ভাষ্যও তাই । কিন্তু বাস্তব চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন । মূলত: এক্্রাভেটর(খনন যন্ত্র) মেশিন দিয়ে পুকুরটির চার পাড় ছেটে সৌন্দর্য বর্ধন করা হয়েছে । তলদেশ সমান না করে প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত করায় মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন এ প্রকল্পের সুফলভোগী আব্দুল জলিল,মো: আবুল কাশেম, মহেলা খাতুন প্রমূখ। অথচ ঠিকাদার ইতোমধ্যেই ৯৯ ভাগ বিল তুলে নিয়েছেন । বারুহাস ইউনিয়নের তেতুলিয়া পুকুর পূণ:খনন প্রকল্পের চিত্রও একই । প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যায় সম্বলিত সাইনবোর্ড না থাকায় খোদ এ প্রকল্পের সুফলভোগীরাই জানেন না কত টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে । বড়ধাইগাছি ও কাড়ালিয়া পুকুর পূণ:খনন প্রকল্পে গিয়ে ও সেই একই চিত্র দেখা গেছে । বড় ধাইগাছি পুকুর পূণ: খনন প্রকল্পের ৯৯ ভাগ টাকা উত্তোলন করা হয়েছে । অথচ প্রকল্পটির ৭০ ভাগ কাজ মাত্র সমাপ্ত হয়েছে । পাড় ছেটে এবং তলদেশ সমান না করেই সম্পূর্ণ বিল তুলে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে । কাড়ালিয়া প্রকল্পের চিত্র আরো করুণ । ৫০ ভাগ কাজ করে ৯৯ ভাগ টাকা তুলে নিলেও এ বছরে মাছ চাষে যেতে পারবেন কি না তা নিয়ে শংকা প্রকাশ করেছেন এ প্রকল্পের সভাপতি মো: সরোয়ার হোসেন । তিনি বলেন,খননের নামে কিছুটা কাজ করে ঠিকাদার ফেলে রেখেছে । কাজ সমাপ্ত না হলে মাছ চাষ করা সম্ভব হবে না । ঠিকাদার কেন? কাজ তো করবেন আপনারা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মৎস্য অফিসের স্যারদের গাড়িতে ঠিকাদার আসেন, তাদের ঠিকাদার বলে পরিচয় করে দেন এবং বলে যান যে, ঠিকাদারের কাছ থেকে কাজ বুঝে নেবেন । আমাদের আর কি করার থাকে বলেন ! মৎস্য বিভাগের সিডিউল অনুযায়ি প্রতিটা পুকুরের পাড়-দশ ফুট, গভীরতা-১৩/১৪ ফুট,বকচর-পাঁচ ফুট এবং ঢাল এক অনুপাত এক দশমিক ১৫ হবে । এ প্রকল্পে নিয়োজিত জেলা অফিসের প্রকৌশলী মো: জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সব প্রকল্পের মাপ সমভাবে প্রযোজ্য নয় । কোথাও পাড় আট ফুট,বকচর তিন ফুট হয়ে থাকে । তবে মাটির গড় ঘন মিটার হিসেবে বিল দেয়া হয় । মৎস্য অফিসের একাধিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে নয়াদিগন্তে কে বলেন, প্রকল্পগুলো মৎস্যজীবি সমিতির সুফলভোগীদের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করার কথা । কিন্তু বাস্তব চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন ।কাগজ কলমে মৎস্যজীবি সমিতির সদস্যদের দেখিয়ে কাজ করছেন কতিপয় চিহ্নিত ঠিকাদার । এরা মৎস্য অধিদপ্তরের উর্ধতন মহলে তদবির করে কাজ নিয়ে আসেন । এবং গরীব মৎস্যজীবিদের অন্ধকারে রেখে জেলা ও উপজেলা মৎস্য অফিস কে ম্যানেজ করে অলিখিতভাবে এ সকল ঠিকাদারই কাজ গুলো করে থাকেন ।

Facebook Comments

পাঠকের মন্তব্য

Design & Developed By:

সম্পাদক ও প্রকাশক : 
আরিফুর রহমান সুমন
মোবাইলঃ ০১৬১১ ১৫ ৮৬ ০৬
ই-মেইল: info@ss24bd.com
নির্বাহী সম্পাদক: 
মোঃ শামিম মীর
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
মোঃ দিদারুল ইসলাম জয়

বরিশাল অফিসঃ
জাহাঙ্গির নগর, বাবুগঞ্জ, বরিশাল -৮২৩৩।

ঢাকা অফিসঃ
৮৫ পুরানা পল্টন লেন, ঢাকা ১০০০।

টপ
  বরিশালে যাত্রীবাহি লঞ্চে গার্মেন্টস কর্মীকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা   উজিরপুরে আটিপাড়া ফাজিল মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ   উজিরপুরে ইয়াবা ও অস্ত্রসহ ২ মাদকসেবী গ্রেফতার   বরিশালে মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালী   পুলিশ কনষ্টেবলদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে মিষ্টি বিতরণ * ব্যতিক্রমী উদ্যোগে ওসি শিশির কুমার পাল   বরিশালে বিদ্যুৎপৃষ্টে কলেজ ছাত্রীর মৃত্যু   বরিশালে অপহরনের চারদিন পর মাদ্রাসা ছাত্রী উদ্ধার   থানা পুলিশের বাঁধা উপেক্ষা করে মুক্তিযোদ্ধার সম্পত্তি দখল করে ঘর নির্মান   বরিশাল অগ্নিকান্ডে চারটি বসতঘর ভস্মিভূত   বরিশালে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে অমানুষিক নির্যাতন   বরিশাল কৃষি ইনস্টিটিউটের নিখোঁজ ছাত্রের সন্ধান মিলেছে   সুগন্ধা নদীর পাড়ের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ   গৈলা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সততা ষ্টোরের উদ্বোধণ   বরিশালে পঞ্চমদিনে নার্সিং কলেজে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল   মাসব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধণ   বাংলাদেশের জন্য মার্কিন সহায়তা অব্যাহত থাকবে-রাষ্ট্রদূত   বরিশালে সর্বত্র কল্লাকাটা আতংক *দুশ্চিন্তায় অভিভাবক ** পুলিশের দাবি পুরোটাই গুজব   বরিশাল নগরীজুড়ে তোলপাড় প্রবাসীর কাছে কাউন্সিলরের পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি   দালালের প্ররোচনায় বরিশালে পাঁচ মাসের শিশু পুত্রকে বিক্রি করেছেন মা   বাবুগঞ্জের তিন নদীর অব্যাহত ভাঙনে দীশেহারা তীরবর্তী মানুষ